সোমবার, ২২ জুলাই, ২০১৯

গণপিটুনিতে রেনু নিহতের ঘটনায় আটক ৩


রাজধানীর বাড্ডায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে তাসলিমা বেগম রেনু (৪০) নিহতের ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জানায়, এর সঙ্গে জড়িত বাকিদেরও ভিডিও ফুটেজ দেখে পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা করা হচ্ছে।

রবিবার ১১ টার দিকে বাড্ডা থেকে ওই তিনজনকে আটক করা হয়। আটকৃতরা হলেন, জাফর, শাহীন, বাপ্পী।


এ বিষয়ে গণমাধ্যমে বাড্ডা থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন যুবককে বাড্ডা থেকে আটক করা হয়েছে। এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি ভাইরাল হওয়া হৃদয় নামের অভিযুক্ত একজনকে এখনও আটক করা যায়নি। 

এর আগে গত শনিবার সকালে উত্তর বাড্ডায় ছেলেধরা সন্দেহে ওই নারীকে পিটিয়ে আহত করে বিক্ষুব্ধ জনতা। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
আরো জানাযায় সরকারি তিতুমীর কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী দুই সন্তানের জননী তাসলিমা বেগম রেনু গতকাল বাড্ডা গিয়েছিলেন স্কুলের খোঁজ-খবর নিতে, বাচ্চাকে ভর্তি করাতে হবে বলে। কদিন পর তার আমেরিকা যাওয়ার কথা ছিল। বাচ্চার স্কুলের খোঁজ-খবর নিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি করে ফিরবেন, এমনটা মনে করে বাসা থেকে বেরিয়েছিলেন। কিন্তু রেনু আপুকে আর বাসায় ফিরতে দেওয়া হল না! উত্তর-পূর্ব বাড্ডায় 'ছেলে ধরা' সন্দেহে মানুষরূপি পশুরা পিটিয়ে মেরেছে তাকে।

সরাকরি তিতুমীর কলেজ সাংবাদিক সমিতির উদ্যোগে আমাদের রেনু আপুকে পিটিয়ে হত্যা করার প্রতিবাদে আগামীকাল সোমবার সকাল ১১টায় কলেজে মানববন্ধন হবে। সাবেক, বর্তমান সকল তিতুমীরিয়ানের উপস্থিতি কামনা করছি।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।