শনিবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

চন্দ্রযান-২ ব্যর্থ, সাংবাদিক সম্মেলন করে যা বললেন মোদী>> SSTV


চন্দ্রযান-২ ব্যর্থ হওয়ার কারণে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে ইসরো থেকে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন মোদী। রাতে ইসরোর হেডকোয়ার্টারেই ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আজ শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকালে মোদী জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিবেন।এরআগে ভারতের চন্দ্রযান-২ চাঁদের বুকে নামার চূড়ান্ত মুহূর্তের শেষ কয়েক ঘণ্টায় উত্তেজনাময় কাটিয়েছে ভারতবাসী। এই প্রথম চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে নামবে কোনো যান। এখন পর্যন্ত কেউ চাঁদের এ অংশে পা রাখেনি।





তবে চন্দ্রযান-২ এর অবতরণের কয়েক সেকেন্ড আগেই এর ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা, ইসরোর বিজ্ঞানীরা। প্রথম দেশ হিসেবে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করে প্রথম দেশের স্বীকৃতি পাওয়ার আশায় ছিল ভারত, তবে রাত ১.৫৫টার দিকে জানা যায় মিশন সফল হচ্ছে না।





এ মিশন নিয়ে খুবই আশাবাদী ছিলেন মোদী। সফল হলে উৎসবের হাসিতেই হাসতো পুরো ভারতবাসী। তবে শেষ পর্যন্ত এ মিশন ব্যর্থ হওয়ায় সুখের হাসি হাসতে পারলেন না মোদী। তবে গণমাধ্যমের সামনে দুঃখের হাসিই হাসলেন মোদী।ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, পূর্ব পরিকল্পনা রাত ১টা৩৮ মিনিটে শুরু হয় বিক্রমের অবতরণ প্রক্রিয়া।

সেকেন্ডে ১.৮ কিলোমিটার থেকে যানের গতিবেগ কমিয়ে আনা শুরু হয় শূন্যে। সেই লক্ষ্যে শুরু হয় হার্ড ব্রেকিং। নিখুঁত হার্ড ব্রেকিং পর্বের পর ফাইন ব্রেকিং পর্ব শুরু হতেই দেখা দেয় বিপর্যয়। সেই পর্যায়ে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই ইসরোর কন্ট্রোল সেন্টারের সঙ্গে যাবতীয় সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় যানটির।ইসরোর প্রধান ক শিবান বলেন, ‘বিক্রম ল্যান্ডার ছিল পরিকল্পিত এবং ২.১ কিলোমিটার পর্যন্ত স্বাভাবিক লাগছিল। পরবর্তীকালে, পৃষ্ঠের সঙ্গে ল্যান্ডারের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।





তথ্য বিশ্লেষণ করা হচ্ছে।’রাত ১ টা ৪০ নাগাদ কক্ষ ছেড়ে চাঁদে নামতে শুরু করে ল্যান্ডার বিক্রম। ইসরো সূত্রে বলা হয়েছিল, সব ঠিক থাকলে রাত ১টা ৫৩ মিনিটে চাঁদের মাটিতে পা রাখবে ভারতের চন্দ্রযান।তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভারতীয় বিজ্ঞানীদের উদ্দ্যেশে বলেন, ‘আপনাদের জন্য গর্বিত দেশ।’ চন্দ্রপৃষ্ঠ ছোঁয়ার কয়েক সেকেন্ড আগেই চন্দ্রায়ণ ২ এর সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবার ঘটনাটি মোদীকে জানান ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবান। ইসরোর কন্ট্রোলরুমে নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘এটা জীবনের উত্থান ও পতন। এটা কম কৃতিত্ব নয়। আমি আপনাদের অভিন্দন জানাই।’প্রসঙ্গত, রাত দেড়টা থেকে আড়াইটার মধ্যে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে নামার কথা ছিলো চন্দ্রযান-টুয়ের ল্যান্ডার বিক্রমের।



ভোর সাড়ে ৫টা নাগাদ ল্যান্ডার থেকে বেরিয়ে আসার কথা ছিলো রোভার ‘প্রজ্ঞান’। এরপরই চাঁদের মাটিতে ঘুরে ঘরে তথ্য যোগাড়ের কাজ শুরু করতো এই রোভার।গত ২২শে জুলাই শ্রীহরিকোটা থেকে চন্দ্রযান টু উৎক্ষেপণ করে ইসরো। চাঁদের মাটিতে পা দেয়া চতুর্থ দেশ হিসেবে ইতিহাস গড়বে ভারত ৷ এর আগে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীন চাঁদে মহাকাশযান পাঠিয়েছিল।২০০৮ সালে ভারত প্রথম মহাকাশযান চন্দ্রযান-ওয়ান উৎক্ষেপণ করে। তবে এটি চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করেনি।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।