বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

নোয়াখালীতে হাতিয়ার মেঘনা নদীতে অস্ত্র ও গুলিসহ ৬ দস্যু আটক, ২ জেলে উদ্ধার!!



ফখরুদ্দিন মোবারক শাহ রিপন,স্টাফ রিপোর্টারঃ
নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার মেঘনা নদীতে অভিযান চালিয়ে ৬ জলদস্যুকে আটক করেছে কোস্টগার্ড।
এসময় অপহৃত দুই জেলে, একটি মাছ ধরার বোট, দুইটি এলজি, ছয় রাউন্ড গুলি, চারটি সাউন্ড গ্রেনেড, চৌদ্দটি ককটেল ও চারটি চোরা উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার ভোরে আজাহার মেম্বারের ঘাট সংলগ্ন মেঘনা নদী থেকে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলেন, নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার সফি আলম সর্দারের ছেলে ইউছুফ (৩৬), একই এলাকার জেবল হকের ছেলে নবী আলম (৫৫), আবুল কালামের ছেলে আবুল বাসার (৩৬), হাতিয়া উপজেলার নলেরচরের আলী আহম্মদের ছেলে হেঞ্জু মিয়া (৩৫), একই এলাকার ওবায়দুল হকের ছেলে হারুন (৫০) ও ভোলার দৌলতখান এলাকার মফিজুল ইসলামের ছেলে নূরে আলম (৩৫)।
উদ্ধারকৃত জেলেরা হচ্ছেন, জেলার সদর উপজেলার নূরুল হকের ছেলে আব্দুর রহিম ও একই উপজেলার নূরুল ইসলামের ছেলে আনোয়ার হোসেন বাদশা।

কোস্টগার্ড জানায়, মঙ্গলবার নোয়াখালী-স্বন্দীপের সীমান্তবর্তী মেঘনা নদীতে একটি মাছ ধরার বোটে হামলা চালিয়ে ১০জন জেলেকে অপহরণ করে জলদস্যু বাহিনী। এরমধ্যে ৮জেলকে ছেড়ে দিলেও বোটসহ দুই জেলেকে অপহরণ করে নিয়ে যায় তারা। এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার ভোরে হাতিয়ার আজাহার মেম্বারের ঘাট সংলগ্ন মেঘনা নদীতে অভিযান চালানো হয়।

এসময় কোস্টগার্ডের উপস্থিতি টের পেয়ে দস্যু বাহিনী তাদের উপর হামলার চেষ্টা করলে দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে ৬ দস্যুকে আটক করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে অপহৃত দুই জেলে, একটি মাছ ধরার বোট, দুইটি এলজি, ছয় রাউন্ড গুলি, চারটি সাউন্ড গ্রেনেড, চৌদ্দটি ককটেল ও চারটি চোরা উদ্ধার করা হয়েছে।


কোস্টগার্ড হাতিয়ার স্টেশন অফিসার লে. বিশ্বজিৎ বড়ুয়া  জানান, আটককৃত দস্যুদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.