শনিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২০

ভেন্টিলেটর তৈরিতে সেনাবাহিনীর দারুণ সাফল্য

করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়ছে পুরো বিশ্ব। কোভিড-১৯ এর কোনো স্বীকৃত চিকিৎসা এখনো আসেনি। এই যুদ্ধে তাই সবচেয়ে বড় অস্ত্র এখন পর্যন্ত ভেন্টিলেটর। এবার সেই ভেন্টিলেটর তৈরি করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত অনেকেরই অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ডিসট্রেস সিনড্রোমের কারণে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। তখনই প্রয়োজন হয় ভেন্টিলেটরের। কভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা ব্যাপক হারে বেড়ে যাওয়ায় মুমূর্ষু রোগীর জন্য যখন ভেন্টিলেটরের সংকটে ভুগছে উন্নত দেশগুলোও। বাংলাদেশেও এই ভেন্টিলেটরের অপ্রতুলতা আছে।

এ অবস্থায় সুখবর দিচ্ছে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি (বিএমটিএফ)। সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ-এর তত্ত্বাবধানে প্রতিষ্ঠানটি তৈরি করছে অলটারনেটিভ ভেন্টিলেটর।
সেনাবাহিনীর আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) জানিয়েছে, সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের নির্দেশনায়, বিএমটিএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজর জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহউদ্দিনের পর্যবেক্ষণে, যুক্তরাষ্ট্রের এমআইটির কনসেপ্টে, টাইগার আইটির সহযোগিতায় এই ভেন্টিলেটর তৈরি করছে।

বড় খবর হল, এখানে সপ্তাহে এক হাজার ভেন্টিলেটর তৈরি করা যাবে। উদ্ভাবিত ভেন্টিলেটর এরিমধ্যে কয়েকজন রোগীর ওপর পরীক্ষামূলক ব্যবহার হয়েছে।
জানা গেছে, পরীক্ষায় সাফল্যও এসেছে। এখন তাই বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনের জন্যও প্রস্তুত বিএমটিফ।

আইএসপিআর’র পরিচালক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ ইবনে জায়েদ গণমাধ্যমকে বলেন, সেনাবাহিনী প্রধানের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং তার সার্বিক দিক নির্দেশনায় বিএমটিএফকে আর্টিফেসিয়াল ভেন্টিলেটর তৈরির নির্দেশনা দেয়া হয়। সে অনুযায়ী ইঞ্জিনিয়ারদের সহায়তায় বিএমটিএফ দুই সপ্তাহের মধ্যে একটি আর্টিফেশিয়াল ভেন্টিলেটর তৈরি করতে সক্ষম হয়। যে ভেন্টিলেটর পরবর্তীতে ঢাকার সিএমএইচে এনে দুজন রোগীর উপর পরীক্ষা চালানো হয় এবং এর সফলতা প্রমাণিত হয়।
কভিড-১৯ রোগীদের জন্য কনভেনশনাল ভেন্টিলেটর-এর জায়গায় বিকল্প ভেন্টিলেটর হিসেবে এটি কাজ করবে বলে জানিয়েছে বিএমটিএফ।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.