সোমবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২০

কুড়িগ্রামে সংবাদ প্রকা‌শের জে‌রে সাংবাদিককে হুম‌কি,অতঃপর মারধর!


রোকন,কু‌ড়িগ্রাম প্রতি‌নি‌ধিঃ
প্রশাসন ঘো‌ষিত লকডাউন উপেক্ষা করে দোকানের অর্ধেক ঝাঁপ খোলা রে‌খে কৌশ‌লে ব‌্যবসা প‌রিচালনা করার বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা‌কে কেন্দ্র করে বার্তা বাজার পত্রিকার কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি সুজন মোহন্তের বাস ভব‌নে গি‌য়ে হুম‌কি এবং প‌রে বাই‌রে ডেকে নিয়ে গিয়ে লাঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে ক‌য়েকজন ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। র‌বিবার (২৬ এ‌প্রিল) রাত সা‌ড়ে সাতটার দি‌কে কু‌ড়িগ্রাম সদর উপ‌জেলার পৌর এলাকার সা‌দ্দির মোড়ে এ ঘটনা ঘ‌টে। হামলার শিকার সাংবা‌দিক‌কে প্রাণ না‌শের হুম‌কিও দেন অভিযুক্ত ব‌্যবসায়ীরা।

হামলার শিকার সাংবা‌দিক সুজন মোহন্ত জানান,রবিবার (২৬ এপ্রিল) বার্তা বাজার পত্রিকায় 'অর্ধেক ঝাঁপ ফে‌লে কুড়িগ্রামে চলছে দোকানদারি'  শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেখানে আমি পুরো কুড়িগ্রাম শহরের কিছু দোকান খোলা রাখার বাস্তবতা তুলে ধরি। এর জের ধরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে সাদ্দির মোড় এলাকার দোকান ব্যবসায়ী মানিকের নেতৃত্বে কিছু লোক এসে আমাকে হুমকি দিয়ে যায়। এরপর রাত ৮টার দিকে একই এলাকার আরেক দোকান ব্যবসায়ী মামুনের নেতৃত্বে তার ভাই কালাম ও তার বাবা সহ কিছু লোক এসে আমাকে 'কথা আ‌ছে' ব‌লে তার দোকানের সামনে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে আমার উপর হামলা ও গালিগালাজ করা হয়। পরে আমার পরিবারের লোকজন এ‌সে আমাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। বর্তমা‌নে আ‌মি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগ‌ছি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।'  এ ব‌্যাপা‌রে সোমবার কু‌ড়িগ্রাম সদর থানায় অ‌ভি‌যোগ কর‌বেন ব‌লে জানান সুজন মোহন্ত।

এ হামলার ব‌্যাপা‌রে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জা‌নি‌য়ে‌ছেন কু‌ড়িগ্রাম প্রেস ক্লা‌বের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান বিপ্লব। তি‌নি ব‌লেন, 'সংবাদ প্রকা‌শের জে‌রে তরুণ সংবাদকর্মী সুজন মোহ‌ন্তের ওপর এ ধর‌ণের হামলার তীব্র নিন্দা জানাই। সেই সা‌থে প্রশাস‌নের কা‌ছে দা‌বি জানাই, অ‌ভিযুক্ত ব‌্যক্তি‌দের বিরু‌দ্ধে আইনানুগ ব‌্যবস্থা গ্রহণ ক‌রে তা‌দের‌কে বিচা‌রের আওতায় আনা হোক।'

কু‌ড়িগ্রাম সদর থানার অ‌ফিসার ইন চার্জ (ও‌সি) মাহফুজার রহমান জানান, এখনও অ‌ভি‌যোগ পাই‌নি। অ‌ভি‌যোগ পে‌লে আইনগত ব‌্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.