মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল, ২০২০

এবার ঈদের জামাতও তো আমরা করতে পারব না: প্রধানমন্ত্রী



করোনাভাইরাস সংক্রমণ বাড়তে থাকায় এবার বাংলাদেশে ঈদের জামাতও হবে না বলে মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় করণীয় নিয়ে সোমবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের বিভিন্ন জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের এক পর্যায়ে একথা বলেন তিনি।

কিশোরগঞ্জ পুরাতন কালেক্টরেট মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মো. মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ  ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন।

মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, “আগামী শুক্রবার রোজার চাঁদ উঠার সম্ভাবনা রয়েছে। রমজানের চাঁদ উঠার পরে আপনার নির্দেশনা অনুযায়ী তারাবির নামাজ পড়ব। আপনি যে নির্দেশনা দেবেন সেই নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করব।”

তার সঙ্গে কথোপকথনের পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “পেশ ইমাম তার কাছ থেকে কথা শুনতে চাই। এখানকার শোলাকিয়ায় ঈদের সবচেয়ে বড় জামাত হয়। এবার তো আমরা জামাত করতে পারব না। এবার ঈদের জামাতও তো আমরা করতে পারব না। সেজন্য উনার কাছ থেকে একটু শুনি।”

সবাইকে তারাবিসহ অন্যান্য নামাজ ঘরে পড়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমরা নামাজ পড়ি এটা ঠিক। কিন্তু মসজিদে এখন জমায়েত হওয়া- কে কখন সংক্রমিত হয় তার কোনো ঠিক নেই। সেজন্য আমরা বলেছি যে, আমাদের ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে সে নির্দেশনা সব জায়গায় গেছে যে সবাই ঘরে বসে পড়বে। আল্লাহ নিশ্চয়ই ডাক শুনবেন।

“আমি সবাইকে এটাই আবার আহ্বান করব, প্রত্যেকে ঘরে বসে নামাজ পড়েন, দোয়া করেন।  সবাই মিলে দোয়া করেন যে, এই করোনাভাইরাসের হাত থেকে বাংলাদেশের মানুষ যেন বাঁচতে পারে। সেটাই আমাদের একমাত্র চাওয়া।”

বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৯৪৮ জন এবং এই রোগে মারা গেছেন ১০১ জন।

সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৯২ জনের মধ্যে এ ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যা এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.