শনিবার, ১৬ মে, ২০২০

অট্টালিকার পরিবর্তে কুড়ে ঘরেই যার স্থান: সাংবাদিক আহমদ গিয়াস

ছবির লোকটির নাম আহমদ গিয়াস। তিনি পেছনের 'অট্টালিকা'তে তার পরিবার নিয়ে থাকেন।

আহমদ গিয়াস চট্টগ্রামের প্রাচীন পত্রিকা দৈনিক আজাদী ও দৈনিক কক্সবাজারে কাজ করেন। জাতীয় দৈনিক ইত্তেফাকে কাজ করতেন। যদিও বা বকেয়া বেতনের কারণে ওই পত্রিকা ছেড়েছেন।

আহমদ গিয়াস আপাদমস্তক সাদামাটা, নিরহংকার, নির্লোভ ও নৈতিকতায় বলিয়ান এক ব্যক্তি। জীবনে কখনো সময় তিনি কারো ক্ষতি করেছেন কিনা জানি না। কাউকে কষ্ট দিয়েছে সেটাও দেখিনি কোন সময়। যতটুকু পেরেছেন সাধারন মানুষের উপকার করেছেন। আহমদ গিয়াস যার সম্মান তাকে দিয়েছেন। পেশায় অনুজদের মনভরে ভালোবাসা দিয়েছেন। খোঁজ খবর রাখেন। সংবাদের প্রয়োজনে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত শেয়ার করেন।

তিনি আমাদের দেখা স্রোতের বিপরীতে বেড়ে ওঠা এক অদম্য মানুষ।
তার প্রতিটি লিখনি সত্যনিষ্ঠ ও ক্ষুরধার।
অপসাংবাদিকতার বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ দ্রোহ আহমদ গিয়াস। সাংবাদিকতার কলমকে ব্যবহার করেছেন দেশ, জাতি ও ধর্মের জন্য।

সংবাদের পেছনের সংবাদ উঠে আসে তার কলমে। লিখনি শক্তি দিয়ে অনেক মানুষের উপকার করেছেন তিনি ।
স্রোতের বিপরীতে চলে নিজেই প্রমাণ করেছেন, চাইলে ভালো থাকা যায়।

শ্রদ্ধেয় আহমদ গিয়াসের পৈতৃক নিবাস চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী বাজার সংলগ্ন দক্ষিণ পাড়ায়। তিনি পরিবারের সবার বড়।ছোট ভাইয়েরা সবাই প্রতিষ্ঠিত।

স্ত্রী ও ৩ সন্তান নিয়ে কক্সবাজার শহরে থাকতেন আহমদ গিয়াস। মাত্র চার হাজার টাকা বাসা ভাড়া দিতে না পেরে দরিয়া নগর এলাকায় চলে যান। সেখানে একটি কুঁড়েঘরে স্বপরিবারে বসবাস করেন তিনি। ছন-বেড়ার ঘরে থেকেও অট্টালিকার সুখ পান তিনি।

আহমদ গিয়াস আমাদের গর্ব, আমাদের আইডল। তার জন্য অজস্র দোয়া ও ভালোবাসা রইলো। কবির ভাষায় একটি কথায় তার কাচে মধুর মনে হয়। সেটি হল: এমন জিবন তোমি করিবে গঠন, মরনে হাসিবে তোমি কাঁদিবে ভুবন।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.