শনিবার, ১৬ মে, ২০২০

রামুতে ৩ টাকা দামের রূপকথার বাজারের শুভ উদ্বোধন করেন ইউএনও প্রণম চাকমা






রামুতে যাত্রা শুরু করেছে ভিন্নধর্মী ভ্রাম্যমান এক মানবিক বাজার। যার নাম দেয়া হয়েছে রূপকথার বাজার। এখান থেকে হতদরিদ্র পরিবারের শিশুরা কেবল নাম মাত্র মুল্যে কিনতে পারবে তাদের পছন্দনীয় নতুন জামা। রামুর একঝাঁক উদ্যেমী স্বপ্নভাজ তরুণদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নেয়া হয়েছে এমনি এক ব্যতিক্রমি উদ্যােগ।

২৫ মে (শুক্রবার) চমকপ্রদ এই রূপকথার বাজারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা। উদ্বোধনী দিনে এই ভ্রাম্যমান বাজারটি বসানো হয় কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের দরগা পাড়ায় ও পূর্ব রাজারকুলে। যেসব এলাকায় অধিক হতদরিদ্র পরিবার বসবাস করে সেই সব এলাকায় পর্যাক্রমে এই বাজার বসানো হবে বলেও জানান আয়োজকরা। উদ্বোধন কালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা বলেন, উদ্যোগটা খুবই প্রশংনীয়। আগামিতে এই ধরনের মহতী কাজে রামু উপজেলা প্রশাসন পাশে থাকবে।

জানা যায় , চলমান করোনা পরিস্থিতিতে প্রায় দু’মাস ধরে শ্রমজীবি মানুষগুলো গৃহবন্দী। আয় রোজগারের কোন সুযোগ না থাকায় হতদরিদ্র এই মানুষগুলো পড়েছে বিপাকে। আসন্ন ঈদে তাদের শিশুদের নতুন জামা কিনে দেয়া দুরের কথা তাদের মুখে দুবেলা দুমুঠো আহার তুলে দিতে হিমশিম খাচ্ছেন অনেকে। এমনি করুন পরিস্থিতিতে হতদরিদ্র পরিবারের শিশুদের মুখে হাসি ফুটাতে রামুর  সুমথ বড়ুয়া নামে এক তরুণের মাথায় আসে রূপকথার বাজারের এই পরিকল্পনা। ধাপে ধাপে তার সাথে যুক্ত হন রামুর আরো একাধিক তরুণ। শুরু করেন তহবিল সংগ্রহ। তাদের সুন্দর পরিকল্পনা দেখে এগিয়ে আসেন বিত্তশালীরাও। আপাতত ৫ শতাধিক শিশুর মুখে হাসি ফুটানোই তাদের লক্ষ্য। ইতিমধ্যে সেই পরিমান জামাও সংগ্রহ করা হয়েছে। প্রতিটি জামার মুল্য রাখা হয়েছে মাত্র ৩ টাকা। এর কারণ জানতে চাইলে এই আয়োজনের অন্যতম উদ্যােক্তা সুমত বড়ুয়া জানান,কোন পিতার মনে যেন কোন সংকোচ না থাকে,তারা যেন এটিকে দান মনে না করে, সে কারণে এই প্রতীকি দামটা নির্ধারণ করা।


রূপকথার বাজার উদ্বোধন কালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ স্কাউটস রামু উপজেলার সাধারণ সম্পাদক সুকুমার বড়ুয়া,রামু উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুমথ বড়ুয়া, সংবাদকর্মী কফিল উদ্দিন,রামু ব্লাড ডোনার্স সোসাইটির এডমিন সায়েদ জুয়েল,ইমরুল হাসান বাপ্পি,রহিম উদ্দিন সোহেল,মো.ইমরান,মো.শাকিল,অনিন্দিতা বড়ুয়া,তওফিক উদ্দিন,জাবেদ পারভেজ প্রমুখ


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.