বৃহস্পতিবার, ৪ জুন, ২০২০

নোয়াখালীর সেনবাগে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ, স্বামী আটক!






এফ এম শাহ রিপন, স্টাফ রিপোর্টারঃ
নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের মহিদীপুর গ্রামের হোসেন আলী সারেং বাড়ীতে যৌতুকের দাবীতে আরজু আক্তার (১৮) নামের এক গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে স্বামী আনিসুর রহমান প্রকাশ বাবুর (২৪) বিরুদ্ধে। নিহত আরজুর পিতা ওবায়দুল হকের অভিযোগ, দাবীকৃত যৌতুকের ৩ লাখ টাকা না পেয়ে মেয়ের জামাই বাবু তার মেয়ে আরজুকে শাসরোধ করে হত্যার পর গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করে এরপর সে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচার প্রচারণা চালায়।এ ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দিবাগত রাতে।

খবর পেয়ে সেনবাগ থানার এসআই মোঃ তানভির বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে ওই গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন। এবং জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য স্বামী আনিসুর রহমান প্রকাশ বাবুকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

মেয়ের পিতা ওবায়দুল হক জানায়, বিগত ৫ মাস আগে প্রেমের সম্পর্কে তাদের দুই জনের বিবাহ হয়। বিবাহের কিছু দিন পর বাবু অন্য নারীর সঙ্গে আবারো পরকিয়ার প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। এনিয়ে স্বামী-স্ত্রী উভয়ের মধ্যে প্রায় ঝড়গা বিবাদ হতো। এরই মধ্যে মেয়ের জামাই আনিসুর রহমান বাবুু বিদেশ যাবে বলে তার নিকট ৩ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে এসেছিলো। তিনি গরিব মানুষ এত টাকা দিতে পারবে না বলে জানালে সে ক্ষিপ্ত হয়। তিনি আরো জানান, গত ৬ রমজানে তার মেয়ে পিতার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়িতে আসার সময় মেয়ে ও মেয়ের জামাইকে ঈদে খরচ করার জন্য ১৩ হাজার দেন। ঘটনার দিন রাতে বাবু অনেক রাত করে বাড়িতে ফিরলে এই নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মেয়ের জামাই বাবু তার মেয়েকে শাসরোধ করে হত্যা করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে রেখে আত্বহত্যা করেছে বলে প্রচার-প্রচারণা চালায়।

এব্যাপারে যোগাযোগ করলে লাশ উদ্ধারকারী সেনবাগ থানার এসআই মোঃ তানভির জানান,খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছে মাটিতে শোয়ানো অবস্থায় থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়ালীর জেনারেল হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করেন। এঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান।

শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.