রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১

হেলপ কক্সবাজার’র সহায়তায় মাছ চাষে স্বপ্ন বুনছেন পাতাবাড়ি শৈলরডেবা যুব ঐক্য পরিষদ!

নিউজ ডেস্ক ::





কক্সবাজারের উখিয়ার হাঙ্গরঘোনা গ্রামে মাছ চাষ করে দারিদ্র্যমুক্তি ও নিজেদের সাবলম্বী করার স্বপ্ন দেখছেন পাতাবাড়ি শৈলরডেবা যুব ঐক্য পরিষদের সদস্যরা।


স্থানীয় যুব ক্লাবকে স্বাবলম্বী ও শক্তিশালীকরণের লক্ষে উখিয়ার একমাত্র বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা হেলপ কক্সবাজারের সহযোগিতায় মাছ চাষের একটি প্রকল্প দেওয়া হয় পাতাবাড়ি শৈলরডেবা যুব ঐক্য পরিষদ সদস্যদের।


তারই ধারাবাহিকতায় তিন মাস আগে থেকে এক কানি জায়গার পুকুরে মাছ চাষ শুরু করেছেন সংগঠনের সদস্যরা। হেলপ কক্সবাজার কর্তৃক তাদেরকে বিভিন্ন জাতের পোনা এবং মাছের খাবার সরবরাহ করা হয়। এতে তারা পুকুরটি সংস্কার করে মাছ ছাড়েন এবং সঠিকভাবে মাছের খাবার দেন। নিয়মিত পরিচর্যার ফলে অল্প সময়ে মাছ বড় হতে শুরু করেছে এবং মাছ অপুষ্টিতে বা রোগাক্রান্ত হয়নি।


বৃহস্পতিবার সরেজমিন তাদের মৎস্য খামার পরিদর্শনে যান হেলপ কক্সবাজার এর নির্বাহী পরিচালক আবুল কাশেম। এসময় তারা পুকুরে মাছের খাবার দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন এবং পুকুরে মাছের খাবার দিতেই রুই, কাতলা, তেলাপিয়া, পাঙাশ, টেংড়াসহ বিভিন্ন জাতের মাছ খাবার খেতে ছুটে আসে। পরে জাল মেরে দেখা যায়, মাছের সাইজ খুব দ্রুত বড় হচ্ছে এবং আর মাসদেড়েক পরিচর্যা শেষে বাজারে বিক্রি করা যাবে। এতে ভালো লাভবান হবে বলে আশাবাদী তারা।


পাতাবাড়ি শৈলরডেবা যুব ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রুবেল বড়ুয়া বলেন, হেলপ কক্সবাজার এর সহযোগিতায় প্রশিক্ষণ এবং মাছ চাষের সুযোগ তৈরি হয়েছে। সংগঠনের সদস্যরাও খুব খুশি এবং উদ্যোগী হয়েছে। তাই এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে মাছ চাষ শুরু করেছি। এ পর্যন্ত কোন রকমের সমস্যা দেখা দেয়নি এমনকি এ পর্যন্ত একটি মাছও মারা যায়নি। মাছের বৃদ্ধিও ঠিক আছে। আশা করছি মাছের বয়স সাড়ে তিন থেকে চার মাস হলে বিক্রি শুরু করব এবং একটু পরিশ্রম করে মাছ চাষ করতে পারলে ভালো মুনাফা অর্জন সম্ভব বলে জানান তিনি।




পাতাবাড়ি শৈলরডেবা যুব ঐক্য পরিষদের অন্যান্য সদস্যরা বলেন, হেলপ কক্সবাজার’র মাধ্যমে মাছ চাষের প্রকল্প পেয়ে আমাদের সংগঠনের সদস্যদের কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে। উন্নত জীবনের স্বপ্ন এখন তাদের চোখে। উৎপাদনমুখী কাজের মাধ্যমে জীবনমান উন্নয়নে আমাদের সংগঠনের সদস্যরা এখন আর বোঝা নয়, সম্পদ।


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।