বুধবার, ৩ নভেম্বর, ২০২১

মরিচ্যা যৌথ চেকপোস্টে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ ৩ কারবারি আটক

নিউজ ডেস্ক ::



কক্সবাজারের রামু মরিচ্যা যৌথ চেকপোস্টে ৫০ হাজার পিস বার্মিজ ইয়াবাসহ তিন কারবারিকে আটক করেছে রামু ব্যাটালিয়নের (৩০ বিজিবি) সদস্যরা।


মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ৩০ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ইব্রাহীম ফারুক।



 

আটতরা হলেন— পিকআপের চালক বোরখান উদ্দিন (২০)। তিনি উখিয়ার কুতুপালং পশ্চিমপাড়ার খুলু মিয়ার ছেলে। এছাড়া কক্সবাজার সদরের খরুলিয়া এলাকার মৃত আশরাফ আলীর ছেলে নূরুল আজিম (২৬), রামুর মেরুংলোয়া এলাকার সোনা মিয়ার ছেলে আব্দুর রহিম (১৯)।



 

লে. কর্নেল ইব্রাহীম ফারুক জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায়, কোটবাজার থেকে রামু বাইপাসগামী একটি মিনি পিকআপযোগে (চট্ট মেট্রো ন ১১-৬৮৭১) প্রচুর পরিমাণ ইয়াবা পাচার হবে। পরে মরিচ্যা যৌথ চেকপোস্টে তল্লাশি জোরদার করা হয়। এসময় সকাল ১১টার দিকে একটি মিনি পিকআপ মরিচ্যা যৌথ চেকপোস্টে আসলে মিনি পিকআপটি তল্লাশি করা হলে ড্রাইভিং সিটের পিছনে শপিং ব্যাগের মধ্যে বিশেষভাবে লুকায়িত অবস্থায় ৫০ হাজার পিস বার্মিজ ইয়াবা জব্দ করা হয়। এসময় বোরখান উদ্দিনকে (২০) আটক করা হয়।


তাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ইয়াবার মূল মালিক রামু ফুটবল চত্ত্বর হতে ওই ইয়াবা রিসিভ করবে। ইয়াবার মূল মালিককে আটক করার জন্য ১০ জনের একটি বিশেষ টহল দল আটক আসামিকে নিয়ে রামু ফুটবল চত্ত্বর এলাকায় যায় এবং ওই ইয়াবা রিসিভ করতে আসা আরও ২ জনকে আটক করে।


আটকদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ইয়াবার মূল মালিক চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার ইদ্রিস আলমের ছেলে মো. শাকিল (৩০) দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ত এবং ইয়াবা পাচারের সঙ্গে বেশ কয়েকজনের একটি সিন্ডিকেট দিয়ে কাজ করায়।


ওই তথ্যের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামুয়ের নেতৃত্বে ওইদিন বিকেলে বিজিবি, পুলিশ ও আনসারের সমন্বয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ী মো. শাকিল এর চৌমুহনীর বাড়িতে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়।


ওই অভিযানে গিয়ে তাকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। পরে তার বাড়ি তল্লাশি করে তাৎক্ষণিক কোনো মাদকদ্রব্য না পাওয়ায় তার বাড়িটি ইয়াবা কারবারির বাড়ি হিসেবে চিহ্নিত করে পোস্টার লাগানো হয় ও বাড়িতে তালা লাগিয়ে দেয়া হয়।


এসময় মিনি পিকআপ, ৫ মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। জব্দ করা ইয়াবা ট্যাবলেট, মিনি পিকআপ এবং মোবাইলসহ নিয়মিত মামলার মাধ্যমে রামু থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

Ukhiya news


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।