মঙ্গলবার, ৯ নভেম্বর, ২০২১

কক্সবাজারে আরএফ বিল্ডার্সের এমডি দেলোয়ারসহ আটক ৪

নিউজ ডেস্ক ::



চাঁদাবাজি ও মারামারি মামলার অভিযোগে ডেভলাপার কোম্পানি আরএফ বির্ল্ডাসের এমডি হাজী দেলোয়ারসহ চারজনকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ। সোমবার (৮ নভেম্বর) রাতে কলাতলী ওয়ার্ল্ড বীচ রির্সোট থেকে তাদের আটক করা হয়েছে। আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার সদর থানার ওসি তদন্ত বিপুল চন্দ্র দেন।

আটকরা হলেন, চট্টগ্রাম সাতকানিয়া উপজেলার পশ্চিম গাটিয়াডাঙ্গা এলাকার মৃত এয়াজর রহমানের ছেলে আরএফ বির্ল্ডাসের এমডি হাজী দেলোয়ার হোসেন (৬৪), হাজী দেলোয়ারের ছেলে মো. ওমর ফারুক (৩৬), ইমরান ফয়সাল (৩০) ও কক্সবাজার শহরের ৩নং ওয়ার্ড নতুন বাহারছড়া এলাকার মৃত আবু ছৈয়দের ছেলে শেখ আবদুল্লাহ (৩৫)।

জানা যায়, কক্সবাজার পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ড মধ্যম বাহারছড়া এলাকার বাসিন্দা মৃত ছৈয়দ আহমদের ছেলে এডভোকেট নুরুল আলম বাদি হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১২/৬৫০। তারিখ-৯-১১-২০২১ ইং। এই মামলায় ১১ জনের নাম উল্লেখ করে একজন অজ্ঞাতসহ মোট ১২ জনের নাম মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলায় বর্তমানে চারজন আটক হলেও পলাতক রয়েছে- হাজী দেলোয়ারের ছেলে মো. আতিক (২৬), হাজী দেলোয়ারের জামাতা আহমদ হোছন, হাজী দেলোয়ারের ড্রাইবার মো. রফিক, সাতকানিয়া পশ্চিম গাটিয়াডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা মো. হানিফ (৩৫), কক্সবাজার মধ্যম কলাতলী এলাকার হাছন ওরফে বর্মাইয়া হাছনের ছেলে ছৈয়দ বিন হাসান (৫০), মধ্যম কলাতলী এলাকার মৃত মো. আলীর ছেলে আনছারুল করিম (৪০), কলাতলী চন্দ্রিমাস্থ বখতিয়ার ঘোনা এলাকার মৃত নুরুল আলমের ছেলে এখলাস (৪০)। মামলায় হাজী দেলোয়ার হোসেনের স্থানী ঠিকানা চট্টগ্রামের সাতকানিয়া পশ্চিম গাটিয়াডাঙ্গা উল্লেখ করা হলেও বর্তমান ঠিকানা কলাতলী ডলফিন মোড়স্থ ওয়ার্ল্ড বীচ রিসোর্ট।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩ টায় কক্সবাজার সদর থানার ওসি তদন্ত বিপুল চন্দ্র দেন বলেন, মারামারি ও চাঁদাবাজি মামলায় হাজী দেলোয়ারসহ চারজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের আদালতে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে।


এজাহারে বাদি উল্লেখ করেন, কলাতলী মোড়ে ১৩ তলা বিশিষ্ট ওয়ার্ল্ড বীচ রিসোর্ট নামীয় ভবনটি আমি ও আমার অন্যান্য ওয়ারিশদের মালিকানাধীন জমিতে স্থিত। উক্ত জায়গায় বহুতল বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করার নিমিত্তে ডেভেলাপার হিসেবে ১নং আসামী হাজী দেলোয়ার হোসেনের সাথে আমি ও ওয়ারিশগণের সাথে ৪ মে ২০০৮ সালে রেজি:কৃত চুক্তিপত্র হয়। হাজী দেলোয়ার অপরাপর সহযোগী আসামীদের প্রত্যক্ষ সহায়তায় আমাদের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অংশানুপাতিকহারে ফ্ল্যাট ও পার্কিং বুঝিয়ে দেয়নি। বরং তার কোন মালিকানা না থাকলেও সেখানে একটি সন্ত্রাসী সিন্ডিকেট গড়ে তুলে। এমনকি হাজী দেলোয়ার আমাদের ফ্ল্যাট ও পার্কিং বুঝিয়ে দেওয়ার কথা বলে ২০ লাখ টাকা অবৈধভাবে চাঁদা করে আসছে।

এজাহারে আরও উল্লেখ রয়েছে- এর অংশ হিসেবে গত সোমবার (৮ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে আমার ছেলে (বাদির) ও ভাইকে ওয়ার্ল্ড বিচ রির্সোটে ডেকে নিয়ে যায়। এবং সেখানে ১১ থেকে ১২ জন সন্ত্রাসীদের উপস্থিতিতে অস্ত্রের মূখে জিম্মি করে। এক পর্যায়ে তাদের দাবী পূরণ করা হয়েছে মর্মে জোরপূর্বক স্ট্যাম্পও আদায় করা হয়। এই ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) সকালে কক্সবাজার সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
জানা যায়, ২০০৮ সালের জমির মালিকদের সাথে আরএফ প্রপার্টিসের চুক্তি হয়। এরপর আরএফ বির্ল্ডাসের নাম দিয়ে ডেভলাপার ওয়ার্ল্ড বীচ রিসোর্ট নির্মাণ করে। এই আরএফ বির্ল্ডাসের এমডি হাজী দেলোয়ার হোসেন। তবে ওয়ার্ল্ড বীচ রিসোর্টের মালিক পরিচয় দেন হাজী দেলোয়ার। কিন্তু ওনি মালিক নন ওয়ার্ল্ড বীচ রিসোর্টের। তবে তার কয়েকটি ফ্ল্যাট রয়েছে ওয়ার্ল্ড বীচে। যেগুলোর নিয়মিত কিস্তিও পরিশোধ করা হয়নি। ওয়ার্ল্ড বীচ রিসোর্টের মালিক হলেন ফ্ল্যাট ওর্নাস এসোসিয়শন ও জমির মালিকরা। সুত্র: ভয়েসওয়ার্ল্ড


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।