শনিবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২১

ছুটি শেষ, কক্সবাজারে পর্যটকের ভিড় কমেছে

নিউজ ডেস্ক :



টানা তিন দিনের (১৬, ১৭ ও ১৮ ডিসেম্বর) ছুটি শেষ হওয়ায় পর্যটন নগরী কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত খালি হতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ হোটেলের রুম খালি হয়ে গেছে। সেই হিসাবে কক্সবাজারে এখন ৮০ থেকে ৮৫ হাজার পর্যটক অবস্থান করছেন।


শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে সমুদ্রসৈকতের কলাতলী, সুগন্ধা, সি গাল, লাবণী পয়েন্টে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, সৈকত অনেকটা ফাঁকা। গত দুই দিনের মতো ভিড় নেই। বিচ বাইক, ওয়াটার বাইক কিংবা জেট স্কিতে আগের মতো নেই গিজগিজ ভিড়। অনেক কিটকট ছাতা খালি দেখা গেছে।


কক্সবাজার জেলায় সাড়ে ৫ শতাধিক হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউস রয়েছে। এরমধ্যে কক্সবাজার শহরে ৩৫৬টি, মেরিন ড্রাইভ সড়কে ৫০টি, টেকনাফ উপজেলায় ৫০টি ও প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে ১০০টি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বেশিরভাগ পর্যটক হোটেল ত্যাগ করেছেন। গত দুই দিনের মতো ভিড় নেই হোটেলে।


বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) নারায়ণগঞ্জ থেকে পরিবার নিয়ে কক্সবাজার আসেন আকাশ রহমান। দুইদিন থাকার পর আজ শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) চলে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, ‘১৬ ডিসেম্বর এসে রুম পাচ্ছিলাম না। কোনোমতে মিডিয়াম দুটি রুম পেলাম। দাম আমাদের বাজেটের চেয়ে একটু বেশিই নিয়েছে। তারপরও থাকলাম। খাওয়া-দাওয়াতেও এবার দাম বেশি পড়েছে। বাজেট শেষ না হলে আরও একদিন থাকার পরিকল্পনা ছিলো।’



কুমিল্লা থেকে আগত পর্যটক শান্ত মুনির বলেন, ‘ছুটির দিনে ঘুরে বেড়ানোর জন্য কক্সবাজার বেছে নিয়েছিলাম। তাই তিন দিনের ছুটিতে সমুদ্রসৈকতে ছুটে এলাম। অবশেষে চলে যাচ্ছি আজ। এর আগেও বেশ কয়েকবার কক্সবাজারে এসেছি। কিন্তু এবার ট্রুর ব্যয়বহুল ছিলো।’


কক্সবাজার হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কাসেম বলেন, ‘ছুটির দিন শেষ। হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউস ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ খালি হয়ে গেছে। ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস সামনে রেখে দেশের নানাপ্রান্ত থেকে কক্সবাজারে পর্যটকরা বেড়াতে আসেন। অন্য বছরের চেয়ে এ বছর পর্যটক বেশি ছিলো। ১৫ থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যটকের ভিড় এত ছিলো, হোটেলে জায়গা দেওয়ার মতো অবস্থা ছিলো না। কিন্তু তিনদিনের মাথায় এসে ছুটি শেষ হওয়ায় পর্যটকরা ঘুরমুখী হচ্ছেন। আস্তে আস্তে হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউসগুলো খালি হচ্ছে।’


ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, ‘টানা তিনদিনের ছুটিতে আসা বেশিরভাগ পর্যটক ইতোমধ্যে চলে গেছে।’ আবার কিছু কিছু পর্যটক আসছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা। রাইজিংবিডি


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।