শনিবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২১

পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর মিথ্যা যৌতুক মামলা

নিউজ ডেস্ক :



 

পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ার কারণে স্বামীর বিরুদ্ধে উল্টো যৌতুক মামলা দায়ের করেছে পরকীয়ায় আসক্ত এক নারী। এমন অভিযোগ তুলেছেন খোদ স্বামী। সম্প্রতি কক্সবাজার শহরের টেকপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে ন্যায় বিচারের আশায় সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী স্বামী মো: এবাদুল্লাহ প্রকাশ ওবাইদুল।

লিখিত অভিযোগ সুত্রে ও স্বামী ওবাইদুল জানান, সদর উপজেলার পিএমখালী এলাকার মৃত আহম্মদ নবীর পূত্র ওবায়দুলের সাথে ২০১৭ সালে শহরের টেকপাড়া এলাকার জনৈক শাহনাজ পারভীন লাকীর একমাত্র মেয়ে রেজিয়া পারভিন প্রকাশ রিয়া’র সাথে পারিবারিক ভাবে বিবাহ সম্পন্ন হয়। বিয়ের পর থেকে শাশুড়ি শাহনাজ পারভীন লাকীর চাপাচাপিতে অনেকটা বাধ্য হয়ে স্ত্রী নিয়ে শশুর বাড়িতে বসবাস করে আসছিলেন ওবাইদুল।

কিন্তু বাপের বাড়িতে থাকার সুযোগে ধীরে ধীরে বেপরোয়া ও উশৃঙ্খল জীবনযাপন শুরু করে রিয়া। স্ত্রীর এই বেপরোয়া চলাফেরায় অসংখ্যবার বাঁধা প্রদান করলেও শাশুড়ির আশ্রয়-পশ্রয়ে আরো বেপরোয়া হয়ে স্বামীর সাথে দিন দিন খারাপ আচরণ শুরু করেন রিয়া।

ওবাইদুল আরো জানায়, স্ত্রীকে নিয়ে ওবাইদুল নিজ বাড়ি পিএম খালিতে চলে যেতে চাইলেও তাতে অস্বীকৃতি জানায় মা-মেয়ে। কিন্তু এসবের প্রতিবাদ করলে স্ত্রী এবং শাশুড়ি মিলে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজসহ নানা ধরনের মানসিক নির্যাতন শুরু করেন। শুধু তাই নয় মেয়ে জামাই ওবাইদুলকে হাতের মুঠোয় রাখতে নানা ধরনের ছল-চাতুরির আশ্রয় নেন শাশুড়ি লাকী।

তিনি আরো বলেন, স্ত্রী-শাশুড়ির নির্যাতনের ধারাবাহিকতায় তাকে ইয়াবা নিয়ে ঢাকা যাওয়ার প্রস্তাব দেন শাশুড়ি। এতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করলে স্ত্রী-শাশুড়ি মিলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ করে বাসা থেকে বের করে দেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

ওবাইদুল বলেন, বিগত কোরবানীর ঈদের ১০দিন পূর্বে স্ত্রী-সন্তানের সাথে দেখা করতে আচমকা শশুরবাড়িতে গেলে বেডরুমে অচেনা এক পরপুরুষের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় স্ত্রীকে দেখতে পায় সে।

(ওবাইদুল এই অজ্ঞাত ছেলেকে তার স্ত্রীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখার পরে, জেদ করে স্ত্রী তার ফেসবুক আইডির স্টোরিতে ছাড়েন এই ছবি। উল্লেখ্য যে, ছবিটি শশুর বাড়িতে ওবাইদুল ও স্ত্রী রিয়ার বেডরুমে তাদের সন্তান ওহিকে কোলে নিয়ে ধারণ করা হয়।)

স্ত্রীর কাছে তিনি এর কারন জানতে চাইলে মা-মেয়ে মিলে আবারও তাকে লাঞ্চিত করে বাসা থেকে বের করে দেয়। কিন্তু ওবাইদুল সন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভেবে সবকিছু মেনে নিয়ে বউ-বাচ্চাকে নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে নেয়ার কথা বললে যৌতুক, ইয়াবাসহ মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর হুমকি প্রদান করেন শাশুড়ি।

এঘটনায় অসহায় ওবাইদুল তার স্ত্রী-সন্তানকে ফিরে পেতে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে ক্ষীপ্ত হয়ে শাশুড়ি লাকী তার মেয়েকে দিয়ে ওবাইদুলের বিরুদ্ধে আদালতে যৌতুকের মিথ্যা মামলা দায়ের করেন বলে জানান তিনি।

এব্যাপারে ওবাইদুল আরো জানান, ‘আমি স্ত্রী-সন্তানকে ফিরে পেতে চাই। এজন্য আমি প্রশাসনের দারস্থ হয়েছি। কিন্তু আমার স্ত্রী-সন্তানকে আমার কাছ থেকে কেড়ে নিয়ে উল্টো আমার নামে মিথ্যা যৌতুকের মামলা দায়ের করা খুবই দু:খজনক। আমি প্রশাসনের কাছে এর সুষ্ঠ বিচার প্রার্থনা করছি’।

সূত্রঃ আপন কন্ঠ (প্রথম প্রকাশ)

উল্লেখ্য যে, দৈনিক অপন কন্ঠ পত্রিকার অনলাইনে এই নিউজ আসার পর ওবাইদুল তার ফেসবুক আইডিতে শেয়ার করলে, তার স্ত্রী রিয়ার ফেসবুক আইডি ‘ওহি ওহি’ (১০০০৬৯০৮৪৮৮১৯৫৬) থেকে কমেন্ট করে বলেন ‘বাকি কিছুর জন্য অপেক্ষা কর’।

কক্সবাজার ৭১


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।