বুধবার, ১৮ মে, ২০২২

কক্সবাজারে তাপদাহে বাড়ছে ডায়রিয়া রোগী

কক্সবাজার জার্নাল









কক্সবাজারে তাপদাহে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। ১ সপ্তাহে ৩০০ জন ডায়রিয়া রোগী কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। বেডে স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেকের ঠাঁই হয়েছে হাসপাতালের মেঝেতে। পরিস্থিতি সামাল দিতে হাসপাতালের চিকিৎসকরা হিমশিম খাচ্ছেন।


কক্সবাজার সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, আক্রান্তদের মধ্যে বয়স্ক মানুষের সংখ্যা বেশি।


মঙ্গলবার (১৭ মে) বয়স্ক ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ৪৫ জন ভর্তি ছিলেন। প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৫০ জন রোগী ডায়রিয়ার চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে আসছেন।


ইনানীর বাসিন্দা ফয়জুল হাকিম বলেন, দুই দিন ধরে রোগী নিয়ে হাসপাতালে আছেন। অতিরিক্ত গরমে স্ত্রী ও ছোট ছেলে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে। একসঙ্গে পরিবারের দুই সদস্যের ডায়রিয়া হওয়ায় সবাই অনেক কষ্ট পাচ্ছে।


সদরের উত্তর ডিক্কুল এলাকার ফেরদৌস হাসান ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে চার দিন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তিনি আজ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরছেন। ফেরদৌস হাসান বলেন, ‘কয়েকদিনে দেখলাম প্রতিদিন অনেক ডায়রিয়া রোগী ভর্তি হচ্ছে।’


কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শায়লা বলেন, বিশুদ্ধ পানির অভাবে ডায়রিয়া বেড়ে চলছে। কক্সবাজারে উপকূলীয় অঞ্চলে অনেক গভীর থেকেও যে পানি পাওয়া যায়, তাতেও লবণের অস্তিত্ব থাকে। ফলে সেই পানি পেটে গেলে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়।


মেডিকেল অফিসার জানান, হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীর চাপ বেড়েছে। অতিরিক্ত তাপদাহের কারণে পানিশূন্যতাসহ অনেকেই এ সময় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে। প্রতিদিন শিশু ও বয়স্ক নারী-পুরুষ ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ভর্তি হচ্ছে। বর্তমানে বয়স্ক ওয়ার্ডে ৪৫ জন ডায়রিয়া রোগী ভর্তি আছে। আর শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে ৪০ জনের মতো। প্রতিদিন প্রায় ৩০ জন সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরছে।


তীব্র গরমে অনিরাপদ পানি পান না করে নিরাপদ পানি ব্যবহার করলে ডায়রিয়া রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে এমনটাই বলছেন ডা. শায়লা। লোকজন যদি ডায়রিয়া থেকে একদম দূরে থাকতে চায়, তবে রান্না ও গৃহস্থলির কাজেও বিশুদ্ধ পানি ব্যবহারের বিকল্প নেই বলে জানান এই মেডিকেল অফিসার।


কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের প্রধান আবহাওয়াবিদ আবদুল হামিদ মিয়া জানান, কক্সবাজারে প্রতিদিন তাপমাত্রা ৩৩-৩৬ ডিগ্রি থাকছে। সোমবার তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। তবে আজকের তাপমাত্রা ৩৬ এর কাছাকাছি হতে পারে।


তিনি জানান, কয়েকদিনের মধ্যে বৃষ্টিপাত হতে পারে। তবে বৃষ্টিপাত হলেও এই গরমটা থাকবে। এই মাসের শেষে করে মৌসুমী বায়ু শুরু হতে পারে। মৌসুমী বায়ু শুরু হলে গরম কমে যাবে


শেয়ার করুন

Author:

Etiam at libero iaculis, mollis justo non, blandit augue. Vestibulum sit amet sodales est, a lacinia ex. Suspendisse vel enim sagittis, volutpat sem eget, condimentum sem.

0 coment rios:

ধন্যবাদ আপনার সচেতন মন্তব্যের জন্য।